শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৩রা আশ্বিন ১৪২৮
 
সালমান শাহকে হারানোর ২৫ বছর আজ
প্রকাশ: ০৩:২৫ pm ০৬-০৯-২০২১ হালনাগাদ: ০২:৪৯ pm ০৭-০৯-২০২১
 
 
 


বাংলা চলচ্চিত্র জগতের রাজপুত্র বলা হয় শালমান শাহকে। মৃত্যুর দুই যুগ পর এখনও তার আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা ও আবেদন। বরং প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে আরও অনেক বেশি রঙিন হয়েছে তাকে নিয়ে ভালোবাসার রঙ। এখনও টিভি পর্দায় তার অভিনীত ছবি প্রচার হলে দর্শক আগ্রহ নিয়ে দেখেন। ক্ষণজন্মা এই নায়ক রেখে গেছেন  অগণিত ভক্ত।

সালমান শাহের মৃত্যুর ২৫ বছর পরও রহস্যের জাল এখনও ছিঁড়েনি। তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন, নাকি খুন হয়েছিলেন—এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর আজও খুঁজে চলেছেন সালমান স্বজন-ভক্তরা। যদিও ২০২০ সালে পিবিআইর তদন্ত প্রতিবেদনে জানানো হয়, সালমান শাহের মৃত্যু হত্যা নয়, আত্মহত্যা।

৯০ দশকের শ্রেষ্ঠতম নায়ক সালমানের প্রকৃত নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। এ অভিনেতা মাত্র ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। যার বেশিরভাগই ছিল তুমুল জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল। মাত্র তিন বছরের অভিনয় জীবনে এতটা দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র উপহার দেওয়ার ইতিহাস বিরল।

১৯৯৩ সালে সালমান অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‌‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ মুক্তি পায়। এর

যেদিন সালমান শাহের মৃত্যু হয় সেই দিন তার মৃত্যুতে সারাদেশে শোক নেমে এসেছিল। শোক সইতে না পেরে অনেক ভক্ত আত্মাহুতির পথও বেছে নিয়েছিলেন, এমনটাও শোনা গেছে। এরপর অনেক উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে গেছে বাংলা চলচ্চিত্রশিল্প। কিন্তু সালমানের বিকল্প হয়ে ওঠতে পারেননি কেউ।

তার সঙ্গে সবচেয়ে বেশি ছবি করা নায়িকা শাবনূর আক্ষেপ করে বলেছিলেন, ‘সালমান বেঁচে থাকলে আমরা দুজনে উত্তম-সুচিত্রার মতো হতে পারতাম। সালমানের বিকল্প আমি আর কাউকে পাইনি।’

মাত্র চার বছরের চলচ্চিত্র জীবনে সালমান শাহ ২৭টি ছবিতে নায়ক ছিলেন। অল্প দিনের ক্যারিয়ার। কিন্তু যা কাজ করেছেন মন দিয়ে করে গেছেন। তার অভিনয়, পোশাক, স্টাইল, সংলাপ প্রয়োগ; সবই যেন সময়ের চেয়েও অনেক বেশি আধুনিক ছিলো। এগিয়ে ছিলো। দর্শকরা আজও তার ছবিগুলোকে এড়িয়ে যেতে পারেন না। টেলিভিশনের পর্দায় তার অভিনীত ছবি প্রদর্শন হলে হুমড়ি খেয়ে পড়েন দর্শক।

 

 
 

আরও খবর

 
 
 
 
 
 
 
 
©newsofbd24.com